নদীতে নৌকা পারা পার বন্ধঃ বিপাকে সিদ্ধিপাশা ও খানজাহান আলী থানার বাসিন্দারা

0
162

মোঃ ইউসুফ শেখ, খুলনা প্রতিনিধিঃ করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে বন্ধ করে দেয়ে হয়েছে খানজাহান আলী থানার বেশ কয়েকটি নৌকা পারা পারের ঘাট। ফলে চরম ভোগান্তি ও বিপাকে পড়েছে দুই প্রান্তের বাসিন্দা।


বর্তমান সরকারের অবদানে সিদ্ধিপাশা গ্রামের রাস্তাঘাট উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় বেড়েছে মানুষের চলাচল, প্রতিদিন প্রায় পাচঁ থেকে সাত হাজার মানুষের পারাপার।


প্রতিটি নৌকা ঘাটে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত থাকে চরম ব্যস্ততা। উল্লেখযোগ্য, ইস্টার্ন গেট নৌকা ঘাট, আফিল গেট নৌকা ঘাট, গিলাতলা বাজার ঘাট, পাল পাড়া ঘাট, ক্যাবল ঘাট, ফুলবাড়িগেট ঘাট। 


সিদ্ধিপাশা গ্রামের বিশিষ্ট কাঠ ব্যবসায়ী হাসিবুর রহমানের সাথে কথা বলে জানা যায়, অত্রাঞ্চলে বিভিন্ন পেশার মানুষ বসবাস করেন| ডাক্তার, পুলিশ, সাংবাদিক সহ অন্যান্য চাকরীজীবি সব থেকে বেশি বেগ পেতে হচ্ছে খেটে খাওয়া মানুষের যারা দিন এনে দিন খায়।


নদীতে নৌকা বন্ধ থাকায় মাছ ব্যবসায়ী মাছ বিক্রি করতে যেতে পারছে না, সবজি ও ফলের দোকানদার আমদানি করতে পারছে না সবজি ও ফল। অত্রাঞ্চলে রয়েছে বহু সংখ্যাদি পান বরজ, সকাল হলেই শিরোমণি বাজার হাটে যেতে পারছে না পান বিক্রী করতে। সিদ্ধিপাশায় হাসপাতাল না থাকায়  কেউ অসুস্থ হলে জরুরী ভিত্তিতে নদী পার করতে হয়, সেটাও এখন বন্ধ।


এলাকাবাসির দাবি কোরোনা ভাইরাস প্রতিরোধে এমনটি করা হয়েছে । আমরাও চাই , তবে অতীব প্রয়োজনীয় এবং নির্দিষ্ট সময়ে সল্প সংখ্যক লোকজন পারা পারের ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য কতৃপক্ষের প্রতি আহবান জানান।
যেহেতু এই অত্রাঞ্চলে হাসপাতাল নেই সুতরাং রোগী পার করার ক্ষেত্রে সর্বক্ষণিক নৌকা রাখার জন্য অনুরোধ করেন। 

এ বিষয়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন বলে আশাবাদী এলাবাবাসী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here